চান্স না পাওয়ার হতাশা

নির্বাচিত প্রশ্নের মূল পেইজ

প্রশ্ন::

আমাদের সবারই স্বপ্ন থাকে- ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা আর্মি অফিসার। আমরা সেই স্বপ্নের জন্য পড়াশুনা করি, চেষ্টা করি। কিন্তু মাঝপথে এসে সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য অযোগ্য হয়ে গেলে, স্বপ্ন অপূর্ণ থেকে গেলে, আমাদের কি করার থাকে????? হতাশায় ভুগতে থাকলে কি করতে হয়, যা জীবন এর পথে সামনে এগিয়ে যাওয়া যায়?

আমার উত্তর::

তুমি ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা আর্মি অফিসার হতে চাইছিলা কেনো? কারণ সবাই এদেরকে পাত্তা দেয়। সম্মান করে। এদের টাকা বেশি। আর সেজন্যই তুমি এদের মতো হতে চাইছিলা।

তবে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার না হয়েও- তাদের চাইতে বেশি সফল হওয়া যায়। যেমন ধরো একজন ভালো শিক্ষক, সফল ব্যবসায়ী, মাল্টিন্যাশনালের বড় চাকরি, বিসিএস কর্মকর্তা, এরা কিন্তু কম সফল না। হুমায়ুন আহমেদ, জাফর ইকবাল, আবদুল্লাহ আবু সাইয়িদ, ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, ব্যবসায়ী অনন্ত জলিল, অভিনেতা মোশাররফ করিম, নোবেল বিজয়ী মোহাম্মদ ইউনুস, শিল্পী রুনা লায়লা -এরা কেউই ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার না। আবার এরা সবাই একই লাইনের লোকও না। তবে যে যেই লাইনেরই হোক না কেনো, সে সেই লাইনের সেরা।

সো, তোমার জন্য ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ারের ২টা রাস্তা বন্ধ হলে, আরো ১৯৮ রাস্তা খোলা আছে। তোমার বর্তমান অবস্থায় থেকে, যতটুকু সময় হাতে আছে, ততটুকু সময় সিরিয়াসলি কাজে লাগাতে হবে। দিনরাত অমানবিক পরিশ্রম করে, বাকি ১৯৮ রাস্তার ভালো একটা রাস্তায় ঢুকতে হবে। তবে যেই লাইনেই যাবে, সেই লাইনের লাভ-লস হিসাব না করে সেই লাইনের সেরা হওয়ার চেষ্টায় ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।

মনে রাখবে- টেনশন এক প্রকারের এডিকশন। এই হতাশার নেশা ছেড়ে, চেষ্টার নেশা ধরো। চেষ্টার পরিমাণ দিয়ে নিজেকে মূল্যায়ন করা শুরু করলেই, যে লাইনেই থাকো, সেটাকেই উপভোগ করতে পারবে। আর উপভোগ করতে করতে একদিন হাজার হাজার ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ারকে পিছনে ফেলে দিতে পারবে।


FB post