সমালোচক না হয়ে বিশ্লেষক হও

চেষ্টার নেশা, সফলদের একমাত্র পেশা

চেষ্টা বিষয়ক সব লেখার মূল পাতা

আছাড় না খেয়ে কেউ হাঁটা শিখে না। ল্যাং না খেয়ে, কেউ ফুটবল খেলে না। বরং ফুটবল খেলতে গিয়ে যতবার ল্যাং খাবে, ততবারই উঠে দাঁড়াতে হবে। গা ঝাড়া দিয়ে আবারো বলের পিছনে ছুটতে হবে। কোনভাবে কারো কাছ থেকে বল কেড়ে নিতে পারলে সাথে সাথেই গোলপোস্টের দিকে দৌড় মারতে হবে। এইভাবে একবার দুইবার, দশবার বিশবার চেষ্টা করার পরেই একটা গোল উদযাপন করার সুযোগ আসবে।

এই যে একটা গোল দিতে গিয়ে উনিশবার ব্যর্থ হইছো- এটা কেউ হিসেব করবে না। কয়বার ল্যাং খাইছো, সেটা কেউ মনে রাখবে না। কারণ ব্যর্থতা মেইন ফ্যাক্টর না। ব্যর্থতার পরের রিএকশনটাই- মেইন ফ্যাক্টর। ব্যর্থতার পরে যে 'দেখায় দিমু' টাইপের মেন্টালিটি সেট করে- সে ঠিকই দেখায় দিতে পারে। জিততে পারে। আর যে ব্যর্থতার পরে মুখ লুকানোর জায়গা খোঁজে। তাকে মুখ লুকিয়েই রাখতে হয়।

শুনো, ভয় কখনো জয় দিবে না। বরং পিছনে ফেলে দিবে। সংশয় নিয়ে অংশগ্রহণ করলে, কোনরকমে পার পেতে পারো কিন্তু টপ পারফর্মার হতে পারবে না। কারণ টপ পারফর্মার হতে হলে ডিটার্মিনেশন থাকা লাগবে। ডেডিকেশন লাগবে। শুধু পরীক্ষার আগের রাতের ডেডিকেশন দিয়ে কেউ ক্লাসের টপ হবে না। বরং সারা বছরের ডেডিকেশন দিয়েই একজন টপ-এ আসে।

আর যারা নিজেদের উঁচু জাতের প্রাণী ভাবো। তারা মনে রাখবে- দাম্ভিকতার অপর নাম অলসতা। সো, দাম্ভিক হয়ো না। সমালোচক হয়ো না। বরং বিশ্লেষক হও। বিশ্লেষণ করে নতুন রাস্তা বের করো। নিজের সামর্থ্য নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ না করে চেষ্টার ঘাটতি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করো।

টার্গেটের পিছনে লেগে থাকো। যতক্ষণ পর্যন্ত সফলতা না আসবে ততক্ষণ পর্যন্ত ফোকাসড থাকতে হবে। কারণ FOCUS এর মিনিং হচ্ছে- Follow one course until success.

সঙ্গেই থাকুন::

হুট হাট করে মাঝে মধ্যে লেখা আসবে


FB post




Question or Feedback:

যদি লোকসম্মুখে প্রশ্ন জিগ্গেস করতে বা উপদেশ, বকাঝকা, গালাগালি, হুমকি দিতে সংকোচ লাগে তাইলে ইমেইল করে দেন jhankar.mahbub@gmail.com