মিডেল ক্লাস স্ট্রাগল আর সেক্রিফাইস

সুখী হওয়ার চেষ্টাই সংগ্রাম

Family Struggle main page

শেষ হয়ে যাওয়া টুথপেষ্টের গলা টিপে টিপে যারা টুথপেষ্ট বের করতে পারে, তারা জীবন সংগ্রামে বাধার পাহাড় দেখে উল্টা পথে দৌড় দিতে জানে না। যে বাবা পেনশনের টাকা 'অপু দশ বিশ' দিয়ে, চল্লিশটা খরচের খাত থেকে একটা খাত বাছাই করে খরচ করে, সে বাবার সন্তানেরা নেশার গলিতে হারিয়ে যায় না। যে মা মাসের পর মাস ক্ষিধা নাই বলে, নিজের পেট খালি রেখে সন্তানদের খাওয়ায়, সেই মায়ের ফ্যামিলিতে ভাঙ্গন ধরে না। যে ছেলেটা টিউশনির বেতন পেয়ে, অসুস্থ বাবার জন্য ঔষধ কিনে বাড়ি ফিরে, সে ছেলে রাতভর ভিডিও গেমস খেলে সময় নষ্ট করে না। যে মেয়েটা টাকা বাচাতে লুকিয়ে লুকিয়ে দুই গ্লাস পানি খেয়ে, দুপুরের লাঞ্চ সেরে ফেলে, সেই মেয়েটা বাবা মায়ের অসহায়ত্বের দিকে আঙ্গুল তুলে কথা বলে না। যেই ফ্যামিলিতে অর্থের যত অভাব, সেই ফ্যামিলির বন্ধন তত অটুট।

একটা মিডেল ক্লাস ফ্যামিলির ভিত্তিই হলো- স্ট্রাগল আর সেক্রিফাইস। যেখানে বাবা হচ্ছে স্ট্রাগলের কিং আর মা হচ্ছে সেক্রিফাইসের কুইন। মায়ের বিয়ের দিন থেকেই শুরু হয় সেক্রিফাইসের শোভাযাত্রা। নিজের চাওয়া পাওয়াকে আলমারিতে লুকিয়ে রেখেই শুরু করে দেয় ফ্যামিলি গড়ায় অবিরাম সেক্রিফাইস। পরিবারে সন্তান আসলেই সেই সেক্রিফাইসের হার দশগুণ বেড়ে যায়। সেক্রিফাইসের আটভাগ চলে যায় সন্তানের পিছনে, এক ভাগ স্বামীর পিছনে আর একবার ফ্যামিলির পিছনে। বোকা মহিলা নিজের আশা-আকাঙ্ক্ষার জন্য একভাগ সময়ও রাখে না। একজন মা- শিক্ষক হয়ে সন্তানকে পড়ায়, বাবুর্চি হয়ে রান্না করে, পার্সোনাল এসিস্টান্ট হয়ে সবকিছু ঠিকঠাক করে, বডিগার্ড হয়ে নিরাপত্তার বেষ্টনীতে আগলে রাখে, ভালবাসা দিয়ে দুঃখ-কষ্ট দূর করে।

অন্যদিকে বয়স বাড়ার সাথে সাথে বাবার স্ট্রাগলের পরিমাণ বাড়তে থাকে। রিটায়ার করা একজন বাবার পক্ষে সংসারের খরচ মিটানো, ছেলেমেয়েকে মানুষ করানো যে কত বড় সংগ্রাম সেটা বাবারাই শুধু বলতে পারে। মা হচ্ছেন বাবার এই স্ট্রাগলের নির্ভরযোগ্য সঙ্গী। মিডেল ক্লাসের মেয়েরা অর্ধেক জীবন সেক্রিফাইস করে বাপের ফ্যামিলিতে, বাকী অর্ধেক সেক্রিফাইস করে স্বামীর ফ্যামিলিতে। আর মিডেল ক্লাসের ছেলেরা ক্লাসমেট প্রেমিকার হাত ছেড়ে দিয়ে, এক বুক কষ্ট চেপে ধরে, নিজেকে স্টাবলিস্ট করার নেভার এন্ডিং যুদ্ধে নেমে পড়ে।

সঙ্গেই থাকুন::

হুট হাট করে মাঝে মধ্যে লেখা আসবে


FB post




Question or Feedback:

যদি লোকসম্মুখে প্রশ্ন জিগ্গেস করতে বা উপদেশ, বকাঝকা, গালাগালি, হুমকি দিতে সংকোচ লাগে তাইলে ইমেইল করে দেন jhankar.mahbub@gmail.com