বিগিনার লেভেলের প্রোগ্রামার হওয়ার পাঁচ স্টেপ

The shortest path for ফাঁকিবাজ

বলদ টু বস

বিগিনার লেভেলের প্রোগ্রামার হওয়ার পাঁচ স্টেপ

স্টেপ ওয়ান : প্রোগ্রামিংয়ের পঞ্চরত্ন— ভেরিয়েবল, array if-else, লুপ, ফাংশন। যেগুলা হাবলুদের জন্য প্রোগ্রামিং বই বা হাবলুদের ভিডিও টিউটোরিয়াল বা হুকুশ-পাকুশ ওয়েবসাইট বা অন্য কোথাও থেকে শিখা যায়।

স্টেপ টু : ডাটা স্ট্রাকচার। এই ডাটা স্ট্রাকচারগুলার মধ্যে স্ট্যাক, কিউ, লিংকড লিস্ট, ডিকশনারি, হ্যাশ টেবিল, ট্রি ডাটা স্ট্রাকচার । স্ট্যাক, কিউ, ডিকশনারি, হ্যাশ টেবিলের কোডিং জানতে হবে। লিংকড লিস্ট, ট্রি ডাটা স্ট্রাকচার কিভাবে কাজ করে সে সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে।

স্টেপ থ্রি : বেসিক অ্যালগরিদম। search অ্যালগরিদম, কয়েকটা sorting অ্যালগরিদম। এগুলা সম্পর্কে ধারণা,কোডিং করতে পারা, একদম মাস্ট।

স্টেপ ফোর : প্রফেশনাল প্রোগ্রামিং কনসেপ্ট এবং প্রসেস। অবজেক্ট, ক্লাস, অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং, এমনকি ছোটখাটো অ্যাপ বানানোর অভিজ্ঞতা। একটা সফটওয়্যার ফার্মে কিভাবে কাজ করা হয় সে সম্পর্কে হালকা ধরনা।

(উপরের তিনটা স্টেপ 'প্রোগ্রামিংয়ের বলদ টু বস' বই থেকে বা ইন্টারনেট থেকে শিখা যায়)

আর কয়েকটা খুচরা জিনিস সম্পর্কে হালকা ধরনা থাকলে ভালো। যেমন- টাইম কমপ্লেক্সিটি, recursive ফাংশন, ডাটাবেইস, ডিবাগ, কমেন্ট, গিটহাব, এইগুলা সম্পর্কে খুবই হালকা ধারণা। এগুলা এক্সট্রা তাই ইন্টারনেট বা 'প্রোগ্রামিংয়ের বলদ টু বস' এর ওয়েবসাইট থেকে শিখতে পারবি।

স্টেপ ফাইভ: একটা সিভি বা রিজুমি বানাবি। কোনো প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ বা কি-টাইপের চাকরির জন্য অ্যাপ্লাই করবি সেটা ঠিক করবি। সেটা ঠিক করতে না পারলে চাকরির খোঁজ পাওয়া যায় এমন একটা ওয়েবসাইটে যাবি। সেখানে যে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের ওপর সবচেয়ে বেশি চাকরি আছে, সেটা দিয়ে মিনিমাম দুইটা ছোটখাটো সফটওয়্যার বা অ্যাপ বানাবি। সেই কোডগুলা গিটহাব এ রাখবি।

কখনোই আশা করবি না, দু-একটা ইন্টারভিউ দিয়েই চাকরি পেয়ে যাবি। তাই ইন্টারভিউয়ের পিছনে কাঁঠালের আঠার মতো লেগে থাকতে হবে। কমপক্ষে ২০টা ইন্টারভিউ দেয়ার টার্গেট নিয়ে নামতে হবে। ইন্টারভিউ দিতে যাওয়ার আগে, যে চাকরিতে অ্যাপ্লাই করছস, সেই চাকরিতে যেসব কোয়ালিফিকেশন চাইছে, সেগুলা গুগলে সার্চ দিয়ে টিউটোরিয়াল দেখে যেতে হবে। কমপক্ষে এক সপ্তাহ ধরে প্রিপারেশন নিবি। ইন্টারভিউতে যেগুলার উত্তর দিতে পারবি না, সেগুলা বাসায় এসে ভাজা ভাজা করে, তামা তামা বানায় ফেলবি। তাহলে ইন্টারভিউ দিতে দিতেও তোর স্কিল বেড়ে যাবে।

মনে রাখবি— প্রোগ্রামিং হচ্ছে প্যাশনের জিনিস। ইমোশনের জিনিস। এনজয় করার জিনিস। শো-অফ করার জিনিস। প্রোগ্রামিং এমন একটা সেক্টর যেখানে খুব স্মার্ট হলে উঁচু লেভেলের চাকরি আছে। মোটামুটি পারলেও চাকরি আছে। আবার অগা-মগা হলেও চাকরি আছে। তাছাড়া অন্য লাইনে চাকরি করলেও মাঝে মধ্যে প্রোগ্রামিং জানা দরকার হয়ে পড়ে।

'প্রোগ্রামিংয়ের বলদ টু বস': বইমেলা আদর্শ স্টল ৪৯৬-৪৯৭

(ঘরে বসে বই পেতে রকমারিতে ফোন দাও: 16297 বা 015 1952 1971)


FB post




Question or Feedback:

যদি লোকসম্মুখে প্রশ্ন জিগ্গেস করতে বা উপদেশ, বকাঝকা, গালাগালি, হুমকি দিতে সংকোচ লাগে তাইলে ইমেইল করে দেন jhankar.mahbub@gmail.com